বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১০:০৭ অপরাহ্ন

উৎসব মুখর পরিবেশে চলছে ফতুল্লা ইউপি নির্বাচনী প্রচারনা

মো. মনির হোসেনঃ বাড়ি-ঘর থেকে শুরু করে চায়ের দোকান পর্যন্ত চলছে নির্বাচনি আলোচনা, কোন প্রার্থীকে ভোট দিয়ে ফতুল্লার উন্নয়ন অব্যহত রাখবে সেই আলোচনাই সর্বত্র, তবে সবার কথা একটাই ‘সুষ্ঠ নির্বাচন হোক এবং সুন্দর ভাবে যাতে ভোট দিতে পারি’, ফতুল্লার নির্বাচন যেন কোন এক ব্যক্তির পছন্দ মত না হয়।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর হবে ভোট গ্রহন, তফসিল অনুযায়ী প্রার্থী বাছাইয়ের শেষ তারিখ ছিলো ২৯ নভেম্বর, আপিল দায়েরের শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর, আপিল নিষ্পত্তির শেষ তারিখ ৩-৫ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৬ ডিসেম্বর এবং প্রতীক বরাদ্দ হয়েছে ৭ ডিসেম্বর। তাই আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে নিয়ে উৎসব মুখর পরিবেশে গনসংযোগ ও উঠান বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছে প্রার্থীগন।

মামলার জটিলতার কারনে দীর্ঘ উনত্রিশ বছর আটকে ছিলো সদর উপজেলার ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনের আমেজ ও ভোট প্রদানের অধিকার ভুলতে বসেছিলো ফতুল্লাবাসী। তবে সবার অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে গত ১০ নভেম্বর ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন।

৩.৬১ বর্গমাইল আয়তন বিশিস্ট এ ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ৫১,০৫৯ (পুরুষ ২৭,১১৫) (মহিলা ২৩,৯৪৪), এই ইউনিয়নে ২ টি সাব রেজিষ্টার অফিস, ১ টি থানা, ১ টি উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স, জেলা কারাগার, জেলা জজ আদালত, জেলা প্রশাসক এর কার্যালয়, জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সিভিল র্সাজন কার্যালয়, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, জেলা পরিষদ কার্যালয়, গণর্পূত অফিস, বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র, ১ টি রেল ষ্টেশন ও জেলা পশু সম্পদ অফিস রয়েছে।

জানা গেছে, ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী হয়েছেন ৪ জন। তারা হলেন- আওয়মী লীগ মনোনীত প্রার্থী খন্দকার লুৎফর রহমান স্বপন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী মো. শাহজাহান আলী, স্বতন্ত্র প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন ও আলী আজম।

এ ছাড়া, সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য প্রার্থী রয়েছে ২৭ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচনে লড়াই করবেন ১০০ জন। এদিকে দীর্ঘদিন পর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ায় উৎসবের আমেজে মেতেছে ফতুল্লা ইউনিয়নবাসী।

দীর্ঘ উনত্রিশ বছর পর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে কেমন লাগছে?’ এমন প্রশ্নের উত্তরে ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সজীব বলেন, ‘শেষবার যখন ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হয়েছে তখন আমি ভোটার ছিলাম না, ছোট ছিলাম, এখন আমি বিবাহিত; আমার সহধর্মীনি এবং আমার ছেলে দুজনই ভোটার, নির্বাচন যাতে সুষ্ঠ হয় এবং সুন্দর করে যাতে আমরা সকলে ভোট প্রদান করতে পারি সেই আশাই করছি।’

ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. জামিল মিয়া জানান, ‘সব যায়গাই নির্বাচনি আমেজ ছড়িয়ে রয়েছে, এত বছর পর ভোট দিতে পারবো আমরা সত্যিই আনন্দিত, আমাদের দরকার এমন মানুষ যে আমাদের জন্য কাজ করবে, তাই এই ইউনিয়নের সর্বত্র সুষ্ঠ নির্বাচনের আশা করছি।’

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed by M Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!