বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাদক মামলায় দুইজনের ১০বছর কারাদন্ড ছাত্রদলকে ধ্বংস করতেই ছাড়লেন বন্দর উপজেলা, সভাপতির স্ট্যাটাসে তোলপাড়! আড়াইহাজার উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধন চাঁদার জন্য অটোরিক্সা থেকে জোড় করে সিট খুলে রাখছে আজিজুল বাহিনী না’গঞ্জে র‌্যাবের হাতে জাল স্ট্যাম্প ও ভুয়া কাজীসহ গ্রেপ্তার ৪ না’গঞ্জে থেকে গজারিয়া যাওয়ার পথে ছিনতাইয়ের কবলে পুলিশ! বর্তমান যুগের দ্রোনাচার্য্য ছাত্রের অভিভাবকদের পকেট কেটে নেওয়া হচ্ছে!! রূপগঞ্জের শুক্কুর আলী ও তার স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড রূপগঞ্জে সাত শিল্প-প্রতিষ্ঠানকে ছয় কোটি টাকা জরিমানা না.গঞ্জ-জয়দেবপুর পর্যন্ত লেভেল ক্রসিং গেটে আন্ডারপাস-ওভারপাস

ছাত্রদলকে ধ্বংস করতেই ছাড়লেন বন্দর উপজেলা, সভাপতির স্ট্যাটাসে তোলপাড়!

আলোকিত নারায়ণগঞ্জ :নারায়ণগঞ্জ জেলার মধ্যে রাজনৈতিক দিক হিসেবে পরিচিত একটি উপজেলা হচ্ছে বন্দর। আর এ বন্দর উপজেলা ৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। বিশেষ করে সরকার বিরোধী আন্দোলন সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ন অবদান রেখেছেন বন্দর উপজেলার ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।
তবে এ সরকার বিরোধী ছাত্রদলের আন্দোলন সংগ্রামকে দমিয়ে রাখতে ছাত্রদলকে ভেঙ্গে দেয়ার ষড়যন্ত্র কাজ করে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি ও সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজিব। যার কারণে বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি দেয়ার কথা বারবার বললেও টাকার জন্য কমিটি দেননি জেলার সভাপতি রনি। এর প্রমান ইতো মধ্যে বন্দর উপজেলার তৃনমূল পর্যায়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মাঝে স্পষ্ট হয়েছে গেছে, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি শাহেদ আহমেদ এর ফেইসবুক স্ট্যাটাসে।
এদিকে, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলে সভাপতি সাহেদ আহমেদ তার নিজ ফেইসবুকে আইডি থেকে স্ট্যাটাস দিয়েছে। তার স্ট্যাটাসে উল্লেখ করে গতকাল নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের ছেলেদের প্রানের দাবি পূরণ করেছে দল, সে জন্য আমরা আনন্দিত। কিন্তু কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টালে অতিরঞ্জিত নিউজ হয়েছে জেলা সভাপতিকে ঘিরে, যেটা কোন কুচক্রী মহল এর ইশারায় হয়েছে বলে আমরা বিশ্বাস করি। নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের ছেলেদের অনুরোধে করি এ ধরণের নিউজ আমলে না নেয়ার। বরং আমাদের এই দাবি পূরণের জন্য আমার জেলা সভাপতিকে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাই। কারণ তার সহযোগীতা ছাড়া এটা কোন ভাবেই সহজ ছিল না। আর এটা মোটেও জেলার হার নয় কিন্তু নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের জয়। সেই সাথে প্রথমে জেলার সাধারণ সম্পাদক বিরোধীতা করলেও অন্তিম সময়ে সেও আমাদের সহযোগীতা করেছে এতে সংগঠনের লাভবান হয়েছে এবং তারা বড় মনের পরিচয় দিয়েছে। সুতরাং কোন ভাবেই আমরা যেনো বিপ্লবী সহ-যোদ্ধাদের ছোট করার কোন প্রয়াস না দেখাই উল্টো আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।
অপর দিকে, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলে সভাপতি সাহেদ আহমেদ এর স্ট্যাটাসে প্রমান করে দিয়েছে। জেলা ছাত্রদলে সভাপতি মশিউর রহমান রনি টাকার জন্য এবং সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজিব আতাত করে ছেড়েছেন বন্দর উপজেলার সীমানা। জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এ দুজনের কর্মকান্ডের জন্য বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের তৃনমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা দিক্কার জানিয়েছেন।
তথ্য সূত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের এক নেতা বলেন জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি টাকার খেয়ে বন্দর উপজেলার সীমানা ছেড়ে দিয়েছেন। এবং সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজিব উপজেলা ঢুকতে পারবেনা বলে ভয়ে মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি কে সহযোগীতা করে উপজেলার সীমানা আওতাভূক্ত করে দেন মহানগর শাখায়।
তবে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলে সভাপতি মশিউর রহমান রনি তিনি এখনো তার রাজনৈতিক কেরিয়া নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ঢাকা বসে। আর সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজিব তার বাবার রাজনীতি নিয়ে ব্যস্ত। যার জন্য জেলা ছাত্রদলের কোনো খেয়াল না থাকার কারণে বন্দর উপজেলার ছাত্রদলের আওতার সীমানা মহানগরে ছেড়ে দিয়েছেন।
উল্লেখ, গত ১০ ফেব্রুয়ারি ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বন্দর উপজেলার সীমানা নির্ধারিত করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখার সাথে আওতাভুক্ত করে দেয়া হয়েছে। এর পর থেকেই এ নিয়ে বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের তৃনমূল পর্যায়ে নেতাকর্মীদের মাঝে আলোচনা সমোলচনার সৃষ্টি হয়ে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed BY N Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!