শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০২:৫২ অপরাহ্ন

ডাকাত আতঙ্কে ফতুল্লাবাসী

আলোকিত নারায়ণগঞ্জঃ পর পর কয়েকটি ডাকাতির ঘটনা ঘটায় ফতুল্লায় আবারও ডাকাত আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। যদিও পুলিশ ওই ঘটনা ও মামলার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে, তথাপি ডাকাত আতঙ্ক থেকে মুক্ত হতে পারছেনা সাধারন মানুষ। এক সময়ের থানার তালিকাভুক্ত চি‎হ্নিত ডাকাত দলের সদস্যরা পুলিশের নাকের ডগার সামনে দিয়ে বীর দর্পে প্রকাশ্যে করছে। এদের মধ্যে অনেকে আবার মাদক ব্যবসা ও ছিনতার সাথে জড়িত রয়েছে।যে কারনে এ অঞ্চলের সাধারন মানুষ ডাকাত আতঙ্ক থেকে মুক্ত হতে পারছেনা। তাদের ধারনা চি‎হ্নিত ওই সকল ডাকাতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা না হলে যে কোন সময় আবারও ডাকাতির ঘটনা ঘটতে পারে।

উল্লেখ্য গত ২১ মার্চ ফতুল্লার কুতুবপুর ইউনিয়নের ভূইগড় পশ্চিমপাড়া এলাকায় প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলমের বাড়িতে  রাত ২টায় নির্মাণাধীন বাড়ির দারোয়ানকে বেঁধে রড ডাকাতির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ২০ দিন পর জাহাঙ্গীর আলমের শ্যালক শাহাদাৎ কাদির শিবলু বাদী হয়ে  অজ্ঞাত চার ডাকাতের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

জানা যায়, জাহাঙ্গীর আলম ৮ম তলা ভবন নির্মাণ কাজের জন্য ক্রয় করা পাঁচ টন রড বাসার সামনে রাখেন। ২১ মার্চ দিবাগত রাত ২টায় বাড়ির সামনে সিরিয়াল নং-২২৪৪ যোগে একটি ট্রাকে চারজন লোক এসে এসএ মাহিদ এন্টারপ্রাইজ চালান নং-১৪০৫১ দেখিয়ে দারোয়ান সোহাগের কাছ থেকে রড নিয়ে যেতে চায়। এতে সোহাগ তাদের বাধা দিলে তাকে ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে হাত-পা বেঁধে তার মোবাইল ও পাঁচ টন রড ট্রাকে উঠিয়ে নিয়ে যায়।

৮ এপ্রিল রাতে  ফতুল্লার পাগলা দেলপাড়া ক্যানেল পাড়স্হ ডিএনডি প্রকল্পের (ব্রিজের কাজে ব্যবহ্রত) ১৩ টন রড ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করে ফতুল্লা থানা পুলিশ। এ সময় তাদের স্বীকাতরোক্তি মতে ডাকাতি করা ১৩ টন রডের মধ্যে ৪ টন রডসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত একটি ট্রাক নারায়নগঞ্জ (ট-০৫-০০৬২) আটক করেছে পুলিশ।মার্চ মাসের ১৮ তারিখ রাতে ডিএনডি ব্রিজের কাজে ব্যবহৃত ১৩ টন রড ডাকাতি করে নিয়ে যায় তারা।

২৯ এপ্রিল  ফতুল্লার বক্তাবলীতে সাত ডাকাত কে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে ইট ভাটার শ্রমিকরা।বৃহস্পতিবার দিবাগত ভোর রাতে ফতুল্লা মডেল থানার বক্তাবলী চর রাজাপুরস্থ ধলেশ্বরী ব্রিক ফিল্ড নামক ইট ভাটায় ডাকাতি কালে তাদের কে আটক করে পুলিশ দিয়েছে ইট ভাটার শ্রমিকরা।এ সময় তাদের নিকট থেকে একটি ধারালো ছুরি উদ্বার করাা হয়। তবে যারা গ্রেফতার হয়েছে তারা কিশোর।

২ আগষ্ট ২০২০ রাতে ডাকাতি প্রস্তুতি কালে দেশীয় তৈরী ধারালো অস্ত্রসহ মাসদাইর ইদগাঁ সামনে থেকে লিংকন,ঝন্টু,  মনির এবং উওম নামে চার জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

৩ সেপ্টম্বর ২০২০ ফতুল্লায় লিংক রোডে ডিম ব্যবসায়ী জামাই ও শ্বশুরের ওপর চাপাতি হাতে কিশোর গ্যাংয়ের ডাকাতরা হানা দেয়। এ সময় শ্বশুর বিল্লাল হোসেনকে কুপিয়ে টাকা ও মোবাইল লুটে নেয় ডাকাতরা। এরপর যাওয়ার সময় ভ্যানগাড়িভর্তি ডিম কুপিয়ে ভেঙে ফেলে।এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

১২ সেপ্টম্বর ২০২০ ফতুল্লা দাপা ইদ্রাকপুর সাহারা সিটি এলাকায়  নাইট গার্ডের হাত-পা.মুখ বেধে গলায় ও হাতে ছুরি মেরে কনট্রাকশন কাজের প্রায় ৪ টন রড নিয়ে যায়। এঘটনায় দুইজন গ্রেফতার হয়।

৮ নভেম্বর ২০২০ ফতুল্লা থানাধীন পাগলা বাজার হতে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৬ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১ ।এসময় তাদের নিকট হতে ২ টি বিদেশী পিস্তল, ১ টি রিভলবার, ২ টি ম্যাগাজিন, ৫ রাউন্ড গুলি, ১ টি চাকু, ০১ টি কাটার, ২ টি শাবল, ১ টি হুইল রেঞ্চ, ১ টি এক্সেল রড, ০১ টি লোহার রড, ০৪ টি গরু, ০৪ টি মোবাইল ফোন , ১ টি ট্রাক, নগদ ১০,০৫০/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের খাতায় ডাকাত হিসেবে যারা পরিচিত তাদের মধ্যে অন্যতমরা হলেন ফতুল্লার শহিদুল্লা, মোতালেব, নুরুল মেম্বার, হাজীগঞ্জ এলাকার সিলেটি বাবু, মাষ্টার দেলু, রনি, সাইদুর, সোহেল, মোল্লা সোহেল, ভুইগড় এলাকার সুরুজ বেপারী,  আলীগঞ্জের কিলার মতি, কিলার ফারুক, ইদু, রাজা, মকবুল, লুৎফর,দেলপাড়া এলাকার রমজান  সিয়াম, নন্দলাল পুর এলাকার রনি, শাহাবউদ্দিন, মাসুদ, রাজা ওরফে লিটন, সুলতান, ইয়াকুব, জিয়া। পিলকুনি নয়ন, আসলাম, হালিম ,লাল খাঁ এলাকার  শাহাবুদ্দিন, রেল ষ্টেশন এলাকায়, ডাকাত শাহিন, ফেলা,আমির হোসেন পিচ্ছি, পিচ্ছি সোহেল,  শাওন, মোহন, হানিফ,  ছোট মিঠু, আলআমিন । দাপা মসজিদ এলাকার আজমীর, কাজী সেন্টু,শাহাআলম, দাপা সরদার বাড়ির মৃত হায়দার আলীর ছেলে ডাকাত ইয়াছিন,   খোচপাড়ার এলাকার  শুক্কুর, রেহান।সস্তাপুরের শাহ আলমের ছেলে মেহেদী,তালামুল্লাহর ছেলে রতন,তল্লার মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে দীন ইসলাম  মৃত ইসমাইলের ছেলে নূর আলম ও লাল মিয়ার ছেলে মোতালেব ,দাপা শাহাজান রোলিং মিল এলাকার ডাকাত শাহাজুল, শিয়াচর লালখা এলাকার জয়নাল আবেদীনের পুত্র লিংকন,মাসদাইর পাকাপুল এলাকার মকবুল বাবুর্চির পুত্র ঝন্টু ,একই এলাকার শুক্কুর আলীর পুত্র মনির, গাবতলী এলাকার নিতাই চন্দ্র দাসের পুত্র উত্তম প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed by M Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!