মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৪:৩২ অপরাহ্ন

পাগলনাথ মণ্ডপের ৫শ কেজি চাল শিবু দাসের পেটে

ফতুল্লা প্রতিনিধিঃ শারদীয় দুর্গাপূজায় শ্রী শ্রী পাগলনাথ ও শ্রী শ্রী রামসীতা জিউ বিগ্রহ পূজা মণ্ডপের নামে বরাদ্দ নিয়ে ৫শ কেজি চালের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিবু দাসের বিরুদ্ধে। সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার (পিআইও) যোগসাজশে এসব টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে বলে দাবি পাগলনাথ মন্দিরে সেবায়েতদের।

এ বিষয়ে পাগলনাথ মন্দিরে সেবায়েত শ্রী তন্ময় দাস মহন্ত বলেন, আমরা এই মন্দিরে ১৩১তম দুর্গা পূজা উদযাপন করতে যাচ্ছি। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, আমাদের মন্দিরে বরাদ্দকৃত সরকারি চাল দুই বছর যাবৎ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিবু দাস আত্মসাৎ করে আসছে। আমি সদর উপজেলায় মন্দিরের বরাদ্দকৃত চালের জন্য গেলে দেখতে পাই, শিবু দাসের সাক্ষরিত চাল উত্তলন করা হয়েছে। তিনি নিজে একজন পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হয়ে কিভাবে এই চাল আত্মসাৎ করে আমার বুঝে আসে না। শিবু দাস পাগলা বাজারের চিহ্নিত একজন ভূমিদস্যু, মাদক ব্যবসায়ী। তাকে কিভাবে পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রাখা হয়েছে এইটায় এখন আমাদের প্রশ্ন। তার বিতর্কিত কর্মকান্ডের শেষ কোথায়।

তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি), সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও সকলের কাছে অনুরোধ জানিয়ে আরো বলেন, পাগলনাথ মন্দিরে বরাদ্দকৃত সকল সুযোগ সুবিধা পেতে পারি সেই বিষয়ে খেয়াল রাইখেন। এবং পূজা উদযাপন পরিষদ কমিটি থেকে এইসব বিতর্কিত ব্যক্তিদের বহিষ্কার করার অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিবু দাসের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি এই মন্দিরের সভাপতি তাই আমি বরাদ্দকৃত চাল উত্তলন করেছি। এই চাল পূজা মন্দিরের সেবায়তদের দিয়েছেন কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, না তাদেরকে কেন দিব, আমি সভাপতি আমিই এই চাল প্রাপ্য। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্রী রঞ্জিত মন্ডলের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পাগলনাথ মন্দিরে প্রায় তিন বছর যাবৎ শিবু দাস ও শিবু দাস মহন্ত এবং তার ছেলেরা মিলে পূজা উদযাপন করে আসছে। সেই সুবাদে মন্দিরের সকল বরাদ্দকৃত শিবু দাসের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু যদি সেই মন্দিরের সাথে শিবু দাসের সর্ম্পিক্তা না থাকে তাহলে যে ওখানে দায়িত্বে আছে তার কাছে বরাদ্দকৃত সকল কিছু পৌঁছে দেওয়া দরকার। যার প্রাপ্য সেই পাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed by M Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!