মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৪:৫৭ অপরাহ্ন

প্রেমের অনির্বাণ শিখা চিরদিন জ্বলে…..

মো. মনির হোসেন

মো. মনির হোসেন: প্রেমের অনির্বাণ শিখা চিরদিন জ্বলে, স্বর্গ হতে আসে প্রেম স্বর্গে যায় চলে, এ কথাটির সাথে বাস্তবের যদিও মিল নেই কিন্ত্তু একটা বয়সে এ কথাটি স্বর্গীয় বাণী মনে হয়। পৃথিবী ভালোবাসাময়, অন্তত প্রেমিক- প্রেমিকারা হয়তো এটাই বিশ্বাস করে। প্রেম মানুষকে গড়ে, আবার ভাঙেও। কিছু শব্দের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে আমাদের আবেগ, উত্থান, পতন, চাওয়া, ভালোবাসা। ‘প্রেম’ তেমনই একটি শব্দ। তবে মানব প্রেম বৈচিত্রময়। এ প্রেম কখনো সুখের হয়ে আসে, আবার কখনো সব ছিন্নভিন্নও করে দিতে পারে। আবার কখনও সে প্রেম দীর্ঘস্থায়ী, কখনও ক্ষণস্থায়ী হয়। তবে ভালোবাসা, আস্থা, বিশ্বাসের ওপর নির্ভর করে প্রেমের গভীরতা কেমন হবে। প্রেমের উন্মাদনায় সাত সমুদ্র পাড়ি দেয় প্রেমিক, মৃত্যুর মতো কঠিন বিষয়কেও হার মানায় অনেক সময়। শুধু প্রেমের জন্যে ঘটেছে কত রক্তপাত-যুদ্ধ। ধ্বংস হয়েছে নগরী।

প্রেমের প্রথম স্তর সম্পর্কে গবেষক হেলেন ফিসার বলেছেন, যখন কাউকে ভালো লাগে, তখন তাকে ভালোবাসার আগ্রহ বা ইচ্ছা থেকে ছেলেদের ক্ষেত্রে টেসট্রোন ও মেয়েদের ক্ষেত্রে ইস্ট্রোজেন হরমন নিঃসৃত হয়। আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের মতে, প্রেম-ভালোবাসা ইত্যাদিও কমবেশি হরমন সম্পর্কিত বিষয়। হরমনই নির্ধারণ করে কেন ও কখন আপনি প্রেমে পড়বেন। তাই চেতনে-অবচেতনে মানুষ প্রেমে পড়ে।
প্রেমের আগমন নীরবেই গেড়ে বসে মস্তিষ্কে। একজন অন্যজনকে কাছে টানার আগ্রহে দিবানিশি ব্যাকুল হয়ে ওঠে। প্রেম আসলে কী, এর সঠিক ব্যাখ্যা বা সংজ্ঞা দাঁড় করানো সত্যিই কঠিন। কেউ বলে, প্রেমের আরেক নাম জীবন। কেউ বলে, প্রেমের নাম বেদনা। কেউ বলে, পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই। প্রেম একবারই এসেছিল নীরবে, ভাববিলাসীদের মতে, স্বর্গ হতে আসে প্রেম, স্বর্গে যায় চলে।

তাই মানুষ কেন প্রেমে পড়ে, এই প্রশ্ন উঁকি দিতে পারে অনেকের মনে? নারী ও পুরুষের পরস্পরের প্রতি আকর্ষণ থেকে আসে আসক্তি। আসক্তি থেকে আসে পূর্বরাগ। আর পূর্বরাগ হলো প্রেমের প্রস্তুতি। প্রেম হলো কামনা। একে অপরের প্রতি জেগে ওঠা দুর্নিবার বাসনাকে ভালোবাসা বলে। প্রেমে পড়েনি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন।

বিজ্ঞানীদের দেয়া তথ্য অনুসারে, মানুষের মস্তিষ্কে সেরাটোনিন নামক একটি উপাদানের প্রভাবে নারী ও পুরুষের একে অপরের প্রতি স্বভাবজাত কামনা তৈরি হয়। তবে বিজ্ঞানীদের অন্য এক দল মনে করেন, কামনা জাগ্রত হয় সেক্স হরমোন টেস্টোসটেরন ও ইসট্রোজেনের মাধ্যমে। আকর্ষণ তৈরি হয় মস্তিষ্কের ডোপামিন ও নোরিপাইন এবং আসক্তি তৈরি হয় অক্সিটোসিন ও ভ্যাসোপ্রোসিনের মাধ্যমে।

এ তো গেলো সাধারণ প্রেমের কথা। এখন কথা হলো, প্রেম কি সবার জীবনে একবার আসে? বোধহয় না। কিছু মানুষের জীবনে প্রেম বহুবার আসতেই পারে। এটাকে অনেকে নেতিবাচক মনে করতেই পারেন। কিন্তু এটা ভুল কথা। কারণ বিভিন্ন সময়ে মন মানসিকতা, পরিস্থিতির কারণে প্রেম বহুবার আসতেই পারে। একে খারাপ ভাবার কিছু নেই। কেননা মনের ওপর নিয়ন্ত্রণ কি সবসময় রাখা সম্ভব? আর একবার প্রেম ভেঙে গেলে অন্য কারো প্রতি আবার ভালোলাগা কাজ করতেই পারে। এটাকে বাধা দেওয়ার কিছু নেই।
বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, মানুষের বহু প্রেমে পড়ার কারণ হল একাকীত্ব। কেননা মানুষ একা হয়ে পড়লে সে তার জীবনে সবচেয়ে ভালো কিছুটাই খোঁজে। ভালো সঙ্গী খুঁজে নিতে বহুপ্রেমে পড়ে।

বিশেষজ্ঞদের ভাষ্য, অনেকেই শরীরের উত্তাপ পাওয়ার আশায় প্রেম করেন। চাহিদা পূরণ না হলে নতুন করে প্রেমে পড়েন। আসল কথা হচ্ছে, বর্তমানে এই ব্যস্ত জীবনে প্রেমও বদলে যাচ্ছে, প্রেমের সংজ্ঞা ও বদলে যাচ্ছে, এখন প্রেমিক-প্রেমিকা বলতে কোন শব্দ নাই, বয় ফেন্ড এবং গার্ল ফেন্ড, আর তা হলো একাধিক। তবে জীবনের প্রতিটা প্রেমই খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রেম জীবনে একাধিকবার হতে পারে কারণ যতক্ষণ না কেউ তার সত্যিকার মনের মতো সঙ্গী খুঁজে পায়, ততক্ষণ পর্যন্ত সে প্রেমে পড়তেই থাকে।

লেখকঃ সাংবাদিক,

সিনিয়র সহ-সভাপতি,

ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাব।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed by M Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!