রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩০ পূর্বাহ্ন

ধর্ষনের অভিযোগে শ্রমিক লীগ নেতা ঈমান আলীর ভাতিজা সানি গ্রেফতার

ঈমান আলী ও ভাতিজা সানি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ফতুল্লায় ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী(১৩)কে ধর্ষনের অভিযোগে শ্রমিক লীগ নেতার ভাতিজা কিশোর গ্যাং লিডার সানি (১৮) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধর্ষনের শিকার হওয়া কিশোরী স্থানীয় একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী। সোমবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে তাকে শিয়াচর তক্কারমাঠ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।গ্রেফতারকৃত সানী ফতুল্লা থানার শিয়াচর গনি হাজী বাড়ীর মোড় এলাকার আক্কাস আলীর পুত্র ও স্থানীয় শ্রমিক লীগ নেতা ঈমান আলীর ভাতিজা বলে জানা যায়।
ঘটনার বিবরনীতে ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রীর মা জানায়,রবিবার(২৫ অক্টোবর) সে তার মেয়েকে পাশের ফ্ল্যাটের এক মহিলার নিকট রেখে নারায়নগঞ্জের চাষাড়ায় ডাক্তারের নিকট চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলো।দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে তার মেয়ে দুপুরের খাবার খেতে নিজদের কক্ষে গেলে দরজা খোলা পেয়ে বখাটে সানী তাদের কক্ষে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দিয়ে জোর পূর্বক তার মেয়েকে ধর্ষন করে।বিষয়টি টের পেয়ে পাশের ফ্ল্যাটের মহিলা সহ একাধিক জন দরজায় টোকা দিয়ে দরজা খোলার জন্য চিৎকার চেচামেচি করলেও ধর্ষক সানী ২০/৩০ মিনিট পর দরজা খুলে বীরদর্পে তাদের সামনে দিয়ে বের হয়ে যায়।পরক্ষনেই তার মেয়ে তাকে ফোন করে জানায় যে দরজা খোলা পেয়ে সানী তাদের ঘরে প্রবেশ করে তার মেয়ের মুখ চেপে ধরে জোরপূর্বক ধর্ষন করেছে।তবে চলে যাবার সময় সানী তার মেয়েকে বলে যায় যে এ বিষয়ে প্রকাশ করলে বা মুখ খুললে তাকে সহ পরিবারের সদস্যদের কে হত্যা করা হবে।তিনি ডাক্তার না দেখিয়েই তৎক্ষনাৎ বাসায় চলে আসেন।তিনি আরো বলেন,বেশ কয়েক মাস ধরেই বখাটে সানী তার ৬ষ্ঠ শ্রেনী পড়ুয়া মেয়েকে স্কুলে যাতায়াতের পথে প্রেমের প্রস্তাব সহ কু- প্রস্তাব দিয়ে আসছিলে।এ বিষয়টিও তার মেয়ে তাকে অবগত করেছিলো।
এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ইনচার্জ আসলাম হোসেন জানায়,অভিযুক্ত ধর্ষক সানী কে গ্রেফতার করা হয়েছে।এবং তার বিরুদ্বে মামলা রুজু করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
স্থানীয়দের অভিযোগ শ্রমিক লীগ নেতা চাচা ঈমান আলীর শেল্টারে ফতুল্লার শিয়াচর তক্কারমাঠ এলাকায় মাদক ব্যবসা সহ নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের জন্ম দিয়ে দাবড়ীয়ে বেড়াতো কিশোর গ্যাং লিডার মাদক ব্যবসায়ী সানী ওরফে ভাতিজা সানী। ভাতিজা সানী দীর্ঘদিন ধরে ফেন্সিডিল, বিদেশী মদ, গাঁজা, ইয়াবাসহ মাদকের রমরমা পাইকারী ও খুচরা ব্যবসা চালিয়ে আসছিলো।মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে ভাতিজা সানী গড়ে তুলেছিলো এক শ্রেনীর মাদকাসক্ত উঠতি বয়সীদের নিয়ে সন্ত্রাসী বাহিনী। এলাকার যারাই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সানী বা তার সহোযোগিদের বিরুদ্ধে কথা বলছে তাদেরকেই পুলিশ দিয়ে হয়রানী করছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। অনেক সময় মাদক ব্যবসায়ী সানী নিরীহ লোকজনের বাড়িতে মাদকদ্রব্য রেখে পুলিশ দিয়ে হয়রানী করেছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে কথিত শ্রমিক লীগ নেতা শেখ মো. ইমান আলী ভাতিজা সানীকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে মদদ দেয়ায় বর্তমানে ফতুল্লা র শিয়াচর বড়বাড়ী বদরা পুকুরপার, হাজীবাড়ীর মোড়, উকিল বাড়ী মাঠ, লালখাঁ, পুরান ক্যালিক্স স্কুলের পাশে, ইয়াদ আলী মসজিদসহ আশপাশের এলাকায় স্যালসম্যান দিয়ে মাদক বিক্রি করে আসছিলো বলে জানা যায়।
নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed by M Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!