সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০২:২৮ অপরাহ্ন

২১ বছর পর ভারতে মিস ইউনিভার্সের মুকুট

বিনোদন ডেস্ক: ভারত প্রথম মিস ইউনিভার্স মুকুট পেয়েছিল ১৯৯৪ সালে। সেবার বিশ্বমঞ্চে ভারতের নাম উজ্জ্বল করেছিলেন বাঙালি কন্যা সুস্মিতা সেন। এরপর ২০০০ সালে মিস ইউনিভার্স খেতাব জেতেন লারা দত্ত। তারপর কেটে গেছে দীর্ঘ ২১ বছর। ২১ বছর পরে কোন‌ও ভারতীয় মিস ইউনিভার্স খেতাব পেলেন। এবার ভারত পেল তার তৃতীয় মিস ইউনিভার্স হারনাজ সান্ধুকে। এবছর ইসরাইলে বসেছিল মিস ইউনিভার্সের ৭০তম আসর।

মিস ইউনির্ভাস প্রতিযোগিতার আয়োজকদের পক্ষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করা হয়েছে সেই সোনালি মুহূর্ত, যেখানে দেখা যায় ২০২১ সালের মিস ইউনিভার্সের বিজয়িনীর নাম ঘোষণা করা হচ্ছে। ভিডিওর ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘মিস ইউনিভার্স ২০২১-র মুকুট উঠল মিস ইন্ডিয়ার মাথায়’। হারনাজের মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন ২০২০ সালের মিস ইউনিভার্স মেক্সিকোর আন্দ্রেয়া মেজা। মঞ্চে সোনালি গাউনে ঝলমল করলেন হারনাজ, হিরা খচিত মিস ইউনিভার্সের মুকুট তাঁর সৌন্দর্যকে আরও বাড়িয়ে দিল।

হারনাজের জন্ম ও বেড়ে ওঠা

২১ বছর বয়সী হারনাজের জন্ম পাঞ্জাবি পরিবারে। হারনাজের মা একজন গাইনি চিকিৎসক। তাঁর অনুপ্রেরণাই হারনাজকে সাফল্য এনে দিয়েছে। চন্ডীগড়ের মেয়ে পেশায় মডেল, ফিটনেস লাভার ও যোগ ব্যায়ামে পারদর্শী। ইতোমধ্যেই দুটি পাঞ্জাবি ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। চণ্ডীগড়ে মডেলিং করতেন হারনাজ। তিনি পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী। হারনাজ একাধারে হিন্দি, পাঞ্জাবি, ইংরেজি ভাষায় দক্ষ। তিনি পাঞ্জাবি ভাষায় শের লিখতে ভালোবাসেন।

মিস ইউনিভার্সের মুকুট জিতলেন ভারতের হারনাজ সান্ধুমিস ইউনিভার্সের মুকুট জিতলেন ভারতের হারনাজ সান্ধু। ছবি: ইনস্টাগ্রাম

অতীতের প্রাপ্তি

২০১৭ সালে মিস চন্ডীগড় হয়েছিলেন হারনাজ। এরপর ২০১৮ সালে ফের এমার্জিং স্টার শিরোপা পেয়েছিলেন তিনি। ২০১৯ সালে মিস ইন্ডিয়া প্রতিযোগিতায় সেরা বারো প্রতিযোগীর মধ্যে ছিলেন হারনাজ। একই বছর অনুষ্ঠিত ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া পাঞ্জাবে বিজয়ী হয়েছিলেন। ২০২০ সালে মেক্সিকোর একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতা জিতেছিলেন। এরপর ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে মিস ডিভা ইউনিভার্স ইন্ডিয়া খেতাব পান হারনাজ। এরপর মিস ইউনিভার্সের মঞ্চে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি।

প্রতিযোগিতার ফলাফল

হারনাজ প্রথম হয়েছেন। দ্বিতীয় হয়েছেন প্যারাগুয়ের নাদিয়া ফেরারিয়া, এবং তৃতীয় হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার লালেলা মসওয়ানে।

ফাইনাল রাউন্ডে সান্ধুকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল এখন তাঁর বয়সী মেয়েরা যে কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন তাঁদের কী পরামর্শ দেবেন তিনি। সেই প্রশ্নের উত্তরে সান্ধু বলেছেন, বর্তমান যুবসমাজের কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হল তাঁরা কীভাবে আত্মবিশ্বাস ধরে রাখবেন। তাঁদেরই খুঁজে বের করতে হবে কোনটা তাঁদের মধ্যে ইউনিক। সেটাই আসল সৌন্দর্য। নিজের সঙ্গে অন্যর তুলনা বন্ধ করতে হবে। বিশ্বে আরও অনেক কিছু ঘটছে সেদিকে মন দিতে হবে বলে উত্তরে বলেছেন সান্ধু। তিনি আরও বলেন, নিজের সম্পর্কে প্রকাশ করতে হবে। নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। সেই বিশ্বাসের জোরেই আমি এখানে দাঁড়িয়ে রয়েছি।

মাত্র ১৭ বছর বয়সে পাঞ্জাবি ছবিতে অভিনয় শুরু। তিনি নিজেও বেশ কিছু পাঞ্জাবি ছবিতে অভিনয় করেছেন। বিশ্ব সুন্দরীর খেতাব জয়ের পর তিনি বলিউডে পা রাখেন কিনা সেটাই এখন দেখার। কারণ একই ভাবে বিশ্ব সুন্দরীর খেতাব জয়ের পর বলিউডে অভিনয় করতে শুরু করেছিলেন সুস্মিতা সেন এবং লারা দত্ত।

 

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মতামত লিখুন........


© All rights reserved © 2018 Alokitonarayanganj24.net
Design & Developed by M Host BD
error: দুঃখিত রাইট ক্লিক গ্রহনযোগ্য নয় !!!